ঠেলাগাড়ী ১ম, ঘুড়ি ২য়

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সাধারণ ওয়ার্ডের ১২টি প্রতীকের মধ্যে লড়াই হয়েছে ঠেলাগাড়ী ও ঘুড়ির মধ্যে।
সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের ঠেলাগাড়ী প্রতীক নির্ধারণ করে দেয়া হয় দল থেকে। একারণে দলীয় প্রতীক বরাদ্দের দিন তারা ঠেলাগাড়ী প্রতীক চাইলে বেশীরভাগ ক্ষেত্রে অন্য প্রার্থীরা তাদের সেই সুযোগ দেন। সেই হিসাবে ৩০ ওয়ার্ডের মধ্যে ২৭টি ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ী মার্কা পেয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিতরা। তবে ১১ নং ওয়ার্ডে লটারিতে হেরেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মজিবর রহমান। ঠেলাগাড়ী পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মারুফ হাসান জিয়া । তিনজন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন।
এরপরই ঘুড় মার্কা নিয়েছেন ২৬ প্রার্থী । ১২টি প্রতীকের মধ্যে এয়ারকন্ডিশনার, ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট ও করাত প্রতীক নেননি কেউ। সাধারণ ওয়ার্ডে ৯১ নব্বই প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ।
অপরদিকে, সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে যুদ্ধ হয়েছে বই ও আনারস প্রতীকের মধ্যে। ৯ সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মধ্যে বই ও আনারস প্রতীক পেয়েছেন নয়জন করে প্রার্থী।
সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ১০টি প্রতীকের মধ্যে স্টিলের আলমারি প্রতীক কেউ নেয়নি। একটি ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন। সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করছেন ৩৪ জন।
১০ জুলাই সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত তাদের মধ্যে এ প্রতীক বরাদ্দ দেন সিটি নির্বাচনের রিটানিং কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান।
বরিশাল নিউজ/এমএম হাসান

Comments

comments

২০১৮-০৭-১১T২২:২২:৪৯+০০:০০ বুধবার, জুলাই ১১, ২০১৮ ১০:১৫ অপরাহ্ণ|