ভোলায় গ্রাম আদালতের সফলতা প্রায় ৮৮%

গ্রাম আদালত সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে ‘গনমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে ভোলায় । জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা মেজিস্ট্রেট স্বন্দীপ কুমার সরকার। ইউরোপীয় ইউনিয়ন,জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) সহযোগিতায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জেলা প্রশাসন।
প্রান্তিক জনগোষ্ঠির বিচারিক অধিকার নিশ্চিত করতেই সরকার এই প্রকল্প চালু করেছে জানান বক্তারা। এর মাধ্যমে বিকল্প বিরোধ নিস্পত্তির ব্যবস্থা, সমঝোতার
ভিত্তিতে বিরোধ নিস্পত্তি , গ্রামীণ জীবনের চুরি, ঝগড়া-বিবাদ, প্রতারনা, উত্যেক্ত করার মতো ছোটোখাটো বিষয়গুলো ঘরের কাছেই মিমাংশা করা যায় ।
তারা আরো বলেন, গত ৯ মাসে জেলার ৫ উপজেলায় ১৮শ’ ১৮টি মামলা দায়ের করা
হয়েছে গ্রাম আদালতে। এর মধ্যে নিস্পত্তি হয়েছে ১৫শ’ ৯৫টি মামলা। এখানে
মামলার নিস্পত্তির হার ৮৮ ভাগ। তাই গ্রাম আদালতের মাধ্যমে স্বল্প সময়ে যে
সঠিক বিচার পাওয়া যায় এই ধারনা সাধারণ মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পারলে আদালত পাড়ায়
মামলার জট কমে যাবে।
সভায় আরো বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর সাফিন মাহমুদ, বাংলাদেশ
গ্রাম আদালত সক্রিয়করন প্রকল্পের কমিউনিকেশন স্পেসালিষ্ট অর্পনা ঘোষ,
ইউএনডিপির ডিস্ট্রিক ফেসিলিটেটর মো: শফিকুর রহমান, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের
জেলা সমন্বয়কারী সুকুমার মিত্র, প্রেসক্লাব আহবায়ক এম এ তাহের,
প্রেসক্লাব সাবেক সভাপতি এম হাবিবুর রহমান, দৈনিক আজকের ভোলা সম্পাদক
মুহাম্মদ শওকাত হোসেন, সাংবাদিক মোকাম্মেল হক মিলন, কামাল উদ্দিন সুলতান,
আল-আমিন শাহরিয়ার, নেয়ামত উল্লাহ, এডভোকেট শাহাদান হোসেন শাহীন,
লর্ডহাডিঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম এবং গ্রাম আদালতের উপকারভোগী
বোরহানউদ্দিন উপজেলার পক্ষীয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা নাসিমা
আক্তারসহ অন্যান্যরা।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করন (২য় পর্যায়) প্রকল্পের মাধ্যমে
দেশের ২৭টি জেলার ১২৮টি উপজেলার ১ হাজার ৮০টি ইউনিয়নে ২০১৭ সালের
জানুয়ারি থেকে এর কার্যক্রম শুরু হয়। এর মধ্যে ভোলা জেলার ৫টি উপজেলার
৪৬টি ইউনিয়নে এর কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
বরিশাল নিউজ/শরীফ

Comments

comments

২০১৮-০৬-২৯T২০:৩৭:০৮+০০:০০ শুক্রবার, জুন ২৯, ২০১৮ ৮:৩৭ অপরাহ্ণ|